1. admin@dailynaogaonnews.com : admin :
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ধামইরহাটে কৃষকদের মাঝে কম্বাইন্ড হারভেস্টার ও ভুট্টা মাড়াইয়ের যন্ত্র বিতরণ ধামইরহাটে কেক কেটে শিশুদের জন্মদিন ও উপহার বিতরণ  (রাণীনগর থানা পুলিশের অভিযানে) তিন জুয়াড়ীর কারাদণ্ড; নারীসহ ৯জন গ্রেপ্তার উপজেলা নির্বাচনে: আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ নেতারা হয়রানির প্রতিবাদে ঔষধ ব্যবসায়ীদের সকাল সন্ধ্যা প্রতীকী ধর্মঘট  নওগাঁর মান্দায় স্কুলছাত্রী অপহরনের ৪৫ দিন পেরোলেও উদ্ধার হয় নাই ধামইরহাটে আনারস প্রার্থীর হামলায় কাপ পিরিচ প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আহত নওগাঁর ফুটবল রেফারি আব্দুস সালাম আর নেই উপজেলা নির্বাচন: আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বলে ভোট চাওয়ার অভিযোগ চেয়ারম্যান প্রার্থী আজাহারের বিরুদ্ধে  ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সোহেল রানার বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন

নওগাঁর মান্দায় প্রাথমিকের আরেক শিক্ষককে বরখাস্ত আতঙ্কে শিক্ষকেরা

  • প্রকাশিত : বুধবার, ১৭ মে, ২০২৩
  • ৯১ বার পঠিত

ওয়াসিম রাজু,মান্দাঃ নওগাঁর মান্দায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আরও একজন সহকারী শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। সময়মত বিদ্যালয়ে উপস্থিত না হওয়া ও ছুটির পূবেই বিদ্যালয় ত্যাগ করা, বিদ্যালয়ের টিন ও আম বিক্রি করে টাকা আত্মসাত, অসদাচরণসহ বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে এ সিদ্ধান্ত দিয়েছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস। আজ মঙ্গলবার ওই শিক্ষককে বরখাস্তের আদেশ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) ফজলে খোদা। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সিদ্দীক মোহাম্মদ ইউসুফ রেজা স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। বরখাস্তকালিন বিধিমোতাবেক তিনি খোরপোষ ভাতা পাবেন। বরখাস্ত হওয়া শিক্ষকের নাম সেলিম মোরতুজা প্রামাণিক। তিনি কালিনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে কর্মরত ছিলেন। এনিয়ে এক সপ্তাহে দুইজন শিক্ষককে বরখাস্ত করেছে সংশ্লিষ্ট দপ্তর। এর আগে ‘শিষ্টাচার বহির্ভূত’ আচরণের অভিযোগে গত ১০মে বরখাস্ত করা হয় উপজেলা নহলা কালুপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মকলেছুর রহমানকে। বিভাগীয় মামলা রুজু করা হয়েছে পারসিমলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আরেক সহকারী শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে। বরখাস্ত হওয়া শিক্ষক সেলিম মোরতুজা তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত টিন ও আম বিক্রি করে টাকা আত্মসাতের ভিত্তিহীন অভিযোগ আনা হয়েছে। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাসহ উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষে সঙ্গে আমি কখনও অসদাচরণ করিনি।’ শিক্ষক সেলিম মোরতুজা অভিযোগ করে বলেন, ‘আমি দুরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত। এরপরও সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেছি। কিন্তু বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) ফজলে খোদা ও একজন সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তাকে দিয়ে যোগসাজসী প্রতিবেদন তৈরিসহ আমার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল বাশার শামসুজ্জামান। সঠিকভাবে তদন্ত করা হলে প্রকৃত সত্য পাওয়া যাবে বলে আমি বিশ্বাস করি।’ নাম প্রকাশে অনিছুক একাধিক শিক্ষক বলেন, ‘শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল বাশার শামসুজ্জামান কারণে অকারণে শিক্ষকদের হেনস্তা করেন। তাঁর অধীনে শিক্ষকদের সবসময় ‘তুমি’ সম্বোধন করে থাকেন। তাঁর নির্ধারিত ইউনিফর্স না পরায় অনেক শিক্ষককে অপমানিত হতে হয়েছে। বিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে শিক্ষকদের সঙ্গে অসৌজন্যমুলক আচরণ করেন। তিনি স্বেচ্ছাচারিভাবে একের পর এক শিক্ষককে বিভাগীয় মামলা দিয়ে বরখাস্ত করছেন। এতে শিক্ষকের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। কালিনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) ফজলে খোদা বলেন, সহকারী শিক্ষক সেলিম মোরতুজার আচার আচরণ ভাল নয়। তিনি বিদ্যালয়ের অনেক টাকা আত্মসাত করেন। বিদ্যালয়ে সঠিক সময়ে আসা-যাওয়া করেন না। এসব বিষয়ে তদন্ত হয়েছে। এর পর বিধিগত প্রক্রিয়ায় তাঁকে বরখাস্ত করেছে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল বাশার শামসুজ্জামান বলেন, ‘শিক্ষক সেলিম মোরতুজার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ তদন্তে সত্যতা মিলেছে। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে তাঁর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার পর সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। আমার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগগুলো সঠিক নয়।

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2022 Daily Naogaonnews
Theme Customized By Shakil IT Park